দেশের তৈরি ওষুধে ৯৬ শতাংশ রোগী করোনামুক্ত হয়েছেন

মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ফ্যাভিপিরাভির ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশে এই ঔষধটি তৈরি করছে ক্যান্সারের ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান বিকন ফার্মা।

করোনার চিকিৎসায় বিকন ফার্মাসিউটিক্যালসের ফ্যাভিপিরাভির ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল পরিচালনা করে কার্যকর ফল পেয়েছে বাংলাদেশ মেডিসিন সোসাইটি (বিএসএম)। ঢাকায় পরিচালিত এই ট্রায়ালে ৯৬ শতাংশই করোনামুক্ত হয়েছেন।

গত ৮ জুলাই রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে এক সেমিনারে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের এই ফলাফল জানান, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম মোগনী মাওলা।

তিনি বলেন, ‘করোনা আক্রান্ত রোগীদের ওপর এই ওষুধ প্রয়োগের চার দিনের মাথায় ৪৮ শতাংশ এবং ১০ দিনের মাথায় ৯৬ শতাংশ রোগী করোনাভাইরাসমুক্ত হয়েছেন বা সেরে উঠেছেন। পরীক্ষার সময় প্লাসেবা গ্রুপের (যাদের বিকল্প ওষুধ দেওয়া হয়, বাস্তবে তা ওষুধ নয়) ক্ষেত্রে এই হার ছিল চারদিনের মধ্যে শূন্য শতাংশ এবং ১০ দিনের মধ্যে ৫২ শতাংশ।

বিকল্প ওষুধ গ্রহণকারীদের চেয়ে এই ওষুধে রোগীর ফুসফুসের কার্যক্ষমতা তিনগুণ উন্নতি হয়েছে। তবে জটিল রোগী বা অন্তঃসত্ত্বা নারীদের এই ওষুধ দেওয়া হয়নি।’

সবচেয়ে ভালো দিক হল, এ ওষুধ গ্রহণে রোগীর লিভার, কিডনি ও রক্তে শর্করার কোনও ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়নি। ফ্যাভিপিরা ও বিকল্প ওষুধ গ্রহণকারী- এই দুই গ্রুপের রোগীদের উল্লেখযোগ্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছিল না।

যারা করোনায় আক্রান্ত কেবল তারাই এই ওষুধ খাবেন। বিকন ফার্মার প্রতিটি ট্যাবলেটের দাম ৪০০ টাকা। একজন রোগীকে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুসারে রোগের ধরনের ওপর ভিত্তি করে সাত থেকে দশ দিনের কোর্স কমপ্লিট করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ খবর