বিল মেটাতে না পেরে নিজের সন্তান বিক্রি, ফিরিয়ে আনলেন পুলিশ কর্মকর্তা

গাজীপুরে এক পোশাক কর্মী দম্পতি ফিরে পেলেন বিক্রিত সন্তান। হাসপাতালের বিল পরিশোধ করতে না পেরে এ দম্পতি বিক্রি করেন ১১ দিনের সন্তান। ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কোনাবাড়ি এলাকার সেন্ট্রাল হাসপাতালে।

জানা যায়, সন্তান প্রসবের পর হাসপাতালের বিল পরিশোধ করতে না পারায় নিজের সন্তানকে বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছেন এ দম্পতি। সন্তান বিক্রি করেন ২৫ হাজার টাকায়। পরে সন্তান বিক্রির ২৫ হাজার টাকা দিয়ে হাসপাতালের বিল পরিশোধ করেন শরীফ কেয়া দম্পত্তি। বিষয়টি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নজরে এলে ওই শিশু সন্তানটিকে তার বাবা-মার কাছে ফেরত এনে দেন পুলিশ কর্তৃপক্ষ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. আনোয়ার হোসেন। ঘটনার সত‌্যতা জানতে পেরে দ্রুত পদক্ষেপ নেন তিনি। নিজেই টাকা পরিশোধ করে সন্তানকে তার মার কোলে ফিরিয়ে দেন তিনি।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, গত ২১ এপ্রিল কেয়া খাতুন নামে এক গর্ভবতী নারী কোনাবাড়ী এলাকায় অবস্থিত সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি হন। ওইদিনই সিজারের মাধ্যমে তার একটি ছেলে সন্তান হয়। কেয়া খাতুন ওই হাসপাতালে ১১ দিন ভর্তি ছিলেন। এতে হাসপাতালের বিল আসে ৪২ হাজার টাকা। এতো টাকা পরিশোধ করার মত সামর্থ্য ছিলো না মো. শরীফ- কেয়া খাতুন দম্পতির।

একপর্যায়ে হাসপাতালের বিল পরিশোধের জন্য সন্তান বিক্রির সিদ্ধান্ত নেন। পরে ১ মে শুক্রবার ২৫ হাজার টাকায় তাদের ১১ দিন বয়সী সন্তান বিক্রি করে দেন। সেই টাকায় হাসপাতালের বিল পরিশোধ করে বাড়ি ফিরে যান ওই দম্পতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ খবর